Bangladesh produced the world’s first remedicine for corona treatment

Bangladesh has produced a remedial medicine which is recognized as a more effective medicine for the treatment of corona. SKF Pharmaceuticals Limited, a domestic pharmaceutical company, is preparing to supply at the end of production. The final verification will be delivered to the hospitals, said the Department of Drug Administration.

LIKE OUR FACEBOOK PAGE

করোনা চিকিৎসায় তুলনামূলক বেশি কার্যকর ওষুধ বলে স্বীকৃত রেমডেসিভির উৎপাদন করেছে বাংলাদেশ। দেশীয় ওষুধ প্রস্তুতকারী প্রতিষ্ঠান এসকেএফ ফার্মাসিউটিক্যালস লিমিটেড উৎপাদন শেষে সরবরাহের প্রস্তুতি নিচ্ছে। চূড়ান্ত যাচাই শেষে হাসপাতালগুলোতে পৌঁছে দেয়া হবে বলে জানিয়েছে ওষুধ প্রশাসন অধিদপ্তর।

 

করোনাভাইরাস প্রতিরোধে শতভাগ কার্যকর ওষুধের দেখা মেলেনি এখনও। বিশ্বজুড়ে গবেষণা বলছে, কোভিড ১৯ উপশমে তুলনামূলক ভালো অ্যান্টিভাইরাল রেমডেসিভির।

বিশ্বে প্রথম ওষুধ প্রস্তুতকারী প্রতিষ্ঠান হিসেবে জেনেরিক গ্রুপের রেমডেসিভির উৎপাদন করেছে এসকেএফ। এর বাণিজ্যিক নাম ‘রেমিভির’। এসকেএফ জানিয়েছে, বিধি অনুযায়ী নমুনা ওষুধ প্রশাসন অধিদপ্তরের অধীনস্থ ন্যাশনাল কন্ট্রোল ল্যাবরেটরিতে জমা দেওয়া হবে এবং ছাড়পত্র ও বাজারজাতের অনুমতি পেলেই বিতরণ শুরু হবে। ওষুধের মূল উপাদান সরবরাহকারীদের সঙ্গে চুক্তি হয়েছে এবং পর্যাপ্ত কাঁচামাল প্রস্তুত আছে বলেও জানায় প্রতিষ্ঠানটি।

এসকেএফ’র বিপণন ও বিক্রয় পরিচালক ডা. মুজাহিদুল ইসলাম বলেন, বিশ্বে প্রথম রেমডেসিভির ম্যানুফেকচারিংয়ের সব ধাপ শেষ করেছি। হাসপাতালগুলোতে দেয়ার আগে একটা প্রসেস আছে, সেটা শেষ হলেই আমরা দিতে পারবো।

চূড়ান্ত পরীক্ষা শেষে ব্যবহারের অনুমতি দেয়ার কথা জানিয়েছে ওষুধ প্রশাসন অধিদপ্তর।

ওষুধ প্রশাসন অধিদপ্তর মহাপরিচালক মেজর জেনারেল মাহবুবুর রহমান বলেন, এটি আমাদের সরকার থেকে ওষুধ প্রশাসন অধিদপ্তরসহ সবাই এক জোটে হয়ে কাজ করে প্রস্তুত করে রাখছি।

এমন ওষুধ দেশে উৎপাদন যুগান্তকারী মন্তব্য করে বিশেষজ্ঞরা বলছেন, প্রয়োজনে এ নিয়ে আরো গবেষণা করতে হবে।

এসকেএফ-এর পাশাপাশি বেক্সিমকো, ইনসেপটা স্কয়ারসহ আরো আটটি ওষুধ প্রস্তুতকারক প্রতিষ্ঠানকে রেমিসিভির উৎপাদনে অনুমতি দিয়েছে ওষুধ প্রশাসন অধিদপ্তর।

সময়নিউজ/

Check Also

Government has not taken any decision to hold HSC exams’

HSC and equivalent examinations were supposed to start from April 1. Due to the Corona …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *